লালশাক দেহে রক্ত বাড়ানো, ক্যানসার প্রতিরোধ সহ রয়েছে আরও স্বাস্থ্যগুণ!

লালশাক দেহে রক্ত বাড়ানো, ক্যানসার প্রতিরোধ সহ রয়েছে আরও স্বাস্থ্যগুণ!

লালশাক দেহে রক্ত বাড়ানো, ক্যানসার প্রতিরোধ সহ রয়েছে আরও স্বাস্থ্যগুণ!

খেতে সুস্বাদু এই লাল শাকে যে কত রকমের স্বাস্থ্যগুণ লুকিয়ে আছে তা হয়তো
আমরা অনেকেই জানিনা না। অনেকেই খেতে ভালোবাসেন আবার অনেকে লাল
শাক পছন্দও করেন না। কিন্তু আমাদের দেহের সুস্থতা বজায় রাখার জন্য লাল
শাকের গুরুত্ব অনেক বেশি।

লালশাক রক্তে হিমোগ্লোবিন বাড়ায়। ফলে যাদের রক্তস্বল্পতা রয়েছে, তারা নিয়মিত
লালশাক খেলে রক্তস্বল্পতা পূরণ হয়।

তাছাড়া এর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ক্যানসার প্রতিরোধে সাহায্য করে। লালশাক নিয়মিত
খেলে দৃষ্টিশক্তি ভালো থাকে এবং অন্ধত্ব ও রাতকানা রোগ প্রতিরোধ করা যায়।

লালশাক ভিটামিন `এ`-তে ভরপুর। লালশাকের ক্যালরির পরিমাণ কম থাকায়
ডায়াবেটিস রোগীদের জন্যও লালশাক যথেষ্ট উপকারী। এটি মস্তিষ্ক ও হৃৎপিণ্ডকে
শক্তিশালী করে। দাঁতের মাড়ি ফোলা প্রতিরোধ করে। শিশুদের অপুষ্টি দূর
করে। শরীরে অতিরিক্ত ক্যালসিয়াম জমে গিয়ে যেসব অসুখ হয়, তা প্রতিরোধ হয়।
এ ছাড়া এটি শরীরের ওজন হ্রাস করে। এর মধ্যে রয়েছে আরও প্রচুর স্বাস্থ্য গুণও!

লাল শাকের বিটা-ক্যারোটিন হার্টস্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস করে। আঁশ
জাতীয় অংশ খাবার পরিপাকে সহায়তা করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে।
ভিটামিন ‘সি’-এর অভাবজনিত স্কার্ভি রোগ প্রতিরোধ করে লালশাক।

প্রতি ১০০ গ্রাম লাল শাকে আছেঃ

ক্যালসিয়াম – ৩৭৪মি:গ্রাম
প্রোটিন – ৫.৩৪মি:গ্রাম
স্নেহ -০.১৪ মি:গ্রাম
শর্করা-৪৯৬ মি:গ্রাম
ক্যালসিয়াম – ৩৭৪মি:গ্রাম
প্রোটিন – ৫.৩৪মি:গ্রাম
স্নেহ -০.১৪ মি:গ্রাম
শর্করা-৪৯৬ মি:গ্রাম
এছাড়াও রয়েছে ভিটামিন বি২, ভিটামিন সি, ক্যারোটিন ও অন্যান্য খনিজ পদার্থ।
দেহের সুস্থ্যতা বজায় লাল শাকের গুরুত্ব অনেক বেশি।

চলুন জেনে নেওয়া যাক লাল শাকের আরও বিষ্ময়কর পুষ্টিগুনাগুণ ও উপকারীতা সম্পর্কে-

১) শিশুদের অপুষ্টিহীনতা দূর করে।

২) গর্ভবতী মায়েদের জন্য খুবই উপকারী।

৩) ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য লাল শাক খুবই উপকারী।

৪) লাল শাকে রয়েছে প্রচুর পরিমানে আঁশ যা হজমে সহায়তা করে

৫) কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে।

৬) লাল শাকে ক্যালরির পরিমাণ কম থাকায় ওজন হ্রাস করতে সাহায্য করে।

৭) এতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে আয়রন যা দেহের রক্তশূন্যতা দূর করে।

৮) কিডনি পরিষ্কার রাখতে লাল শাকের কার্যকারীতা অনেক।

৯) লাল শাকে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন “সি” যা চোখের দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করে।

১০) এতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন “এ” যা রাতকানা রোগ প্রতিরোধ করে।

১১) দাঁতের সমস্যা ও মাড়ি ফোলা দূর করতে লাল শাক সাহায্য করে। কারণ
এতে রয়েছে ভিটামিন “সি”।

১২) লাল শাক রক্তে হিমোগ্লোবিন বাড়ায়। যাদের রক্ত স্বল্পতা রয়েছে তারা
নিয়মিত লাল শাক খেলে এই ঘাটতি পূরন হবে।

১৩) লাল শাকের এন্টিঅক্সিডেন্ট ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।

১৪) এটি মস্তিষ্ক ও হ্রদপিন্ডকে শক্তিশালী করে।

১৫) শরীরে অতিরিক্ত ক্যালসিয়াম জমে যে সমস্যা দেখা দেয় লাল শাক তা
প্রতিরোধ করে।

১৬) লাল শাকের বিটা ক্যারোটিন হ্নদরোগের ঝুঁকি কমায়।

১৭) লাল শাক চুলের বৃদ্ধি ত্বরান্বিত করে।

এমন অনেক অনেক উপকারীতা রয়েছে এই লাল শাকে।

লালশাক দিয়ে পাংগাস মাছ রান্না কিভাবে রান্না করবেন | Bangla Vegetable Recipe

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *