ঘুড়তে যাচ্ছেন? তা ব্যাগ ঠিকঠাক গুছিয়েছেন তো?

 

ঘুড়তে যাচ্ছেন? তা ব্যাগ ঠিকঠাক গুছিয়েছেন তো?

ভ্রমণকে আনন্দময় করে তোলার জন্য কোন কোন জিনিস সঙ্গে নেবেন বা কী কী নিতে ভুলবেন না তাই বলছি এই লেখায়।

ব্রাশ, পেস্ট, শ্যাম্পু, চিরুনি, ক্রিম/লোশন, লিপজেল ইত্যাদি জিনিস একটা আলাদা ছোট ব্যাগে নিয়ে নিন। পুরুষরা যারা নিয়মিত সেভ করেন তারা রেজর-ফোম, এসব নিতে ভুলবেন না যেন। নারীরা মেকআপ কিট বা অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিস এই ব্যাগেই নিতে পারেন।

রাতে ঘুমানোর পোষাক, মোজা, অন্তর্বাস ইত্যাদি লাগেজের একপাশে রাখবেন। রাতের জন্য হালকা ও আরামদায়ক পোশাক নিন। বিশেষ করে যেখানে যাচ্ছেন সেখানকার আবহাওয়া অনুযায়ী হলে ভাল। মোজা, অন্তর্বাস ইত্যাদি যে কদিন থাকবেন সেই হিসেবে নেবেন।

ক্যামেরা কিন্তু ভ্রমণের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ। এক্সট্রা ব্যাটারি, মেমোরি কার্ড, চার্জার নিয়েছেন কিনা চেক করুন। ল্যাপটপ নিলে অবশ্যই মনে করে তার চার্জারটি ব্যাগে রাখতে ভুল করবেন না।

মোবাইল চার্জারটি অবশ্যই নিতে ভুল করবেন না। একটা এক্সট্রা চার্জার নিতে পারেন যেটা লাগেজের ভেতরে রাখবেন। সবচেয়ে ভাল হয়, সব চার্জার এবং গ্যাজেট একটা ব্যাগে রাখবেন। তাহলে প্রয়োজনের সময় সহজে খুজে পাবেন।

বন্ধুরা কোথাও গেলে সে দেশে হোক আর বিদেশেই হোক সবাই মিলে মোবাইল ক্যামেরা চার্জ দিতে গেলে বিপাকে পরতে হয় যথেষ্ট সংখ্যক চার্জিং পয়েন্ট না থাকায়। এই সমস্যা এড়াতে একটা ছোট মাল্টিপ্লাগ, সাথে থ্রি-পিন থেকে টু-পিন কনভার্টার রাখা ভালো।

এ ছাড়া আপনি যে স্থানে যাবেন সেখানকার আবহাওয়ার তথ্য জেনে আপনি আপনার বাইরে পরার কাপড় গোছাতে পারেন। যেখানে যাবেন সেখানকার পরিবেশ রং এর ব্যাপারটাও মাথায় রাখতে পারেন। একটু ইন্টারনেটে দেখলেই হবে।

আপনার স্যান্ডেল-জুতা পলিথিন বা কাগজে মুড়িয়ে লাগেজের একপাশে রাখতে পারেন। খেয়াল করবেন একেবারে নতুন কিংবা শক্ত জুতা হলে আপনি ভালোভাবে হাঁটতে পারবেন না বা হাঁটলে পায়ে ফোসকা পড়ে যাবে।

টাকা পয়সা ছাড়া তো ভ্রমণের কথা চিন্তাই করা যায় না। যে দেশ বা স্থানে যাবেন সে অনুযায়ী কিছু পরিমাণ ভাংতি অবশ্যই সঙ্গে রাখুন এছাড়া প্রয়োজনীয় ডলারতো রাখবেনই। ডলার কেনার রশিদ সঙ্গেই রাখবেন। সঙ্গে অফিসের এনওসি কাগজটা সঙ্গে রাখতে ভুলবেন না।

সঙ্গে দু-একটা বইও নিন। অবশ্যই বড় কোনো উপন্যাস নয়। হালকা ম্যাগাজিন বা বই হলে ভালো হয়। প্লেন বা ট্রেনে বসে পড়তে পারবেন।

সঙ্গে খাতা-কলম নিতে পারেন। হঠাৎ কোনো জরুরি তথ্য পেলে নোট করা যাবে তাতে। তা ছাড়া বলা তো যায় না, কোনো সুন্দর স্থান দেখে আপনার ভেতর কবিত্বও চলে আসতে পারে। এছাড়া ইমিগ্রেশনসহ বিভিন্ন জায়গায় কলম লাগবেই।

ইয়ারফোন ভ্রমণের সময় নিয়ে যেতে পারেন। আর যাবার আগে অবশ্যই আপাওনার পছন্দসই গান নিয়ে নেবেন। গানে গানে পথ চললে ভ্রমণ আরও উপভোগ্য হবে। আর অব্যশই ফোনের জায়গা খালি করে নেবেন। নয়তো ওখানে গিয়ে বেশি ছবি তুলতে পারবেন না।

ক্যাপ/হ্যাট, ছোট্ট ছাতা প্রয়োজন অনুযায়ী সঙ্গে নিন। রুমাল, ওয়েট টিস্যু খুবই কাজে লাগে, তাই সঙ্গে রাখুন। হালকা শুঁকনো খাবার ও পানি রাখা অত্যন্ত জরুরি।

প্রয়োজনীয় ওষুধ অবশ্যই সঙ্গে রাখুন।

আপনার ঠিকানা, যেখানে যাবেন তার ঠিকানা, নিকটতম কোনো বন্ধু অথবা আত্মীয়স্বজনের নম্বর আপনার পকেট বা মানিব্যাগে রাখতে পারেন।

চেষ্টা করুন এক দুদিন আগে সুটকেস গুছিয়ে ফেলার। তারপর সবকিছু গোছানো শেষ হলে এবার একটু মনে মনে চিন্তা করুন লাগেজে কী কী নিতে ভুলে গেছেন! দেখবেন কিছু না কিছু মনে পরবেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *